সোমবার, ২৯ নভেম্বর ২০২১, ০৯:৫৪ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
শিবগঞ্জে পৌর ছাত্র সমাজের ১নং ওয়ার্ড কমিটি গঠন রাজশাহীতে স্বামীর সামনে ট্রেনেকাটা পড়ে স্ত্রীর মৃত্যু রাজশাহী মহানগরীতে জুয়েলার্স থেকে স্বর্ণালংকারচুরি: গ্রেফতার দুই চোর নন্দীগ্রামে ভিজিডি’র চাল বিতরণ বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে কুটক্তি;প্রতিবাদের মুখে শেরপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সা.সম্পাদকের পদত্যাগ জয়পুরহাটের কালাইয়ে ৫টি ইউপিতে আওয়ামীলীগের জয় দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে ইউনিয়ন পরিষদে নির্বাচনে নির্বাচিত হলেন যারা বগুড়ার ধুনটের ১০ ইউনিয়ন পরিষদে নির্বাচনে নির্বাচিত হলেন যারা নওগাঁয় শীতবস্ত্র বিতরন নবাবগঞ্জে ইউনিয়ন পরিষদে নির্বাচনে নির্বাচিত হলেন যারা

জয়পুরহাটে এখন চাষ হচ্ছে ইন্দোনেশিয়ার ব্ল্যাক রাইচ

সংবাদ দাতা:
  • সময় : বুধবার, ১৭ নভেম্বর, ২০২১
  • ৩৪ দেখা হয়েছে

জয়পুরহাট জেলা প্রতিনিধি, বগুড়া নিউজলাইভ ডটকমঃ প্রচুর পরিমাণে ঔষধি গুনাগুন সমৃদ্ধ ব্ল্যাক রাইচ এখন চাষ হচ্ছে জয়পুরহাট জেলার প্রত্যন্ত অঞ্চল বেরাখাই গ্রামে। ঔষধি গুনাগুন ও বাজারে ব্যাপক চাহিদার কারণে এ ধান চাষে কৃষকরা আগ্রহী হয়ে উঠেছেন। কৃষি প্রধান বাংলাদেশে উচ্চ ফলনশীল জাতের বিভিন্ন ধান চাষ হচ্ছে। এবার যোগ হয়েছে ব্ল্যাক রাইচ বা কালো ধান।
সরেজমিন বেরাখাই গ্রাম ঘুরে ব্ল্যাক রাইচ চাষী রাফিউন নবী নিঝুমের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, জাকস ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে বীজ পেয়ে সাধারণ চাষের পাশাপাশি পরিক্ষামূলক ভাবে ২০ শতাংশ জমিতে ব্ল্যাক রাইচ চাষ করেছেন। এতে ১০ মণ ধান পাওয়ার আশা করছেন তিনি। জমিতে থাকা ধান দেখেই বীজ নেওয়ার জন্য অনেকেই বুকিং দিয়েছেন বলে জানান কৃষক নিঝুম। ঔষধি গুনাগুনের কারণে ব্যাপক চাহিদা বলে ও জানান তিনি। পল্লী কর্ম সহায়ক ফাউন্ডেশন (পিকেএসএফ) এর দিক নির্দেশনায় স্থানীয় বে-সরকারি উন্নয়ন সংস্থা ‘জাকস ফাউন্ডেশনের কৃষি ইউনিট’ ব্ল্যাক রাইচ চাষে কৃষকদের উদ্বুদ্ধ করা সহ বিনা মূল্যে বীজ, সার, কীটনাশক ও কারিগরি সহযোগিতা প্রদান করছে। ব্ল্যাক রাইচ চাষে বাজার জাত ও উৎপাদন নিয়ে প্রথমে কৃষকদের মাঝে নানা সংসয় থাকলে ও ব্ল্যাক রাইচের ঔষধি গুনাগুন বিবেচনা ও ফলন ভালো হওয়ায় সেটি কেটে যায়। মাঠে ধান দেখেই অনেকেই বুকিং দিয়েছেন নেওয়ার জন্য।
জানা গেছে, ইন্দোনেশিয়ায় ব্ল্যাক রাইচ ধানের উৎপত্তি হলে ও অধিক ঔষধি গুনাগুনের কারণে চীন দেশের রাজা-বাদশাদের সুস্বাস্থ্যের জন্য গোপনে এই ‘ব্ল্যাক রাইচ’ চাষ করা হতো। যা প্রজাদের জন্য চাষ করা বা খাওয়া নিষিদ্ধ ছিল। এ কারণে এই ধানকে নিষিদ্ধ ধান ও বলা হতো। পরবর্তীতে জাপান, মিয়ানমার ও ইন্দোনেশিয়া এই ধান চাষ শুরু হয়। সেখান থেকে এই ধান আসে বাংলাদেশে। পার্বত্য এলাকায় এ চালকে বলা হয় পোড়া বিন্নি চাল। থাইল্যান্ডে একে বলে কাও নাইও ডাহম। গত বছর জাকস ফাউন্ডেশনের কৃষি বিভাগের তত্বাবধানে কালো ধানের বীজ উৎপাদনের জন্য প্রদর্শনী স্থাপন করা হয়েছিল। সেখান থেকে বীজ নিয়ে দ্বিতীয় বারের মতো চীনের সপ্তদশ শতকের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাসম্পন্ন মূল্যবান ব্ল্যাক রাইচ বা কালো ধান জয়পুরহাটের পাঁচবিবি উপজেলার মোহাম্মদপুর ইউনিয়নের প্রত্যন্ত অঞ্চল বেরাখাই গ্রামের চার জন কৃষক ওই ধান চাষ করেছেন। ব্যতিক্রম এই ‘কালো ধান’ এক নজর দেখার জন্য ভিড় করছেন কৌতহলী মানুষ। ব্ল্যাক রাইচ চাষী রাফিউন নবী নিঝুমের দেখা দেখি প্রতিবেশী এনামুল হক চৌধুরী ২০ শতাংশ জমিতে, সুলতান আহমেদ ২০ শতাংশ ও একরামুল হক চৌধুরী ৩০ শতাংশ জমিতে ওই ধান চাষ করছেন। এটেঁল যুক্ত মাটি একটু উঁচু জমিতে এ ধান চাষে ভালো ফলন পাওয়ায় কৃষকরা খুশি বলে জানান। সাধারণ অন্যান্য ধানের মতো চাষ পদ্ধতি। এই কালো ধান গাছের উচ্চতা প্রায় সাড়ে ৪ ফুট। এর পাতা, শীষ, ধান ও চাল সবকিছুই কালো। জাকস ফাউন্ডেশনের কৃষি কর্মকর্তা শাহাদত হোসেন শাহিন বলেন, ঔষধি গুনাগুন সমৃদ্ধ কালো ধান চাষে কৃষকদের বীজ, সার ও কীটনাশক প্রদান সহ কারিগরি সহায়তা প্রদান করা হচ্ছে।
পাঁচবিবি উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা লুৎফর রহমান বলেন, সাধারণ ধানের চেয়ে ব্ল্যাক রাইচ বা ধানের দাম ও চাহিদা অনেক বেশি। কালো ধানে প্রচুর পরিমানে অ্যান্টি অক্সিজেন থাকায় শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। ত্বক পরিস্কার করে ও শরীর হতে দূষিত পদার্থ বের করে শরীরকে ফুরফুরে রাখে। এতে থাকা ফাইবার হার্টকে রাখে সুস্থ। কালো চাল ডায়াবেটিস রোগ ও বার্ধক্য প্রতিরোধক। এ কালো ধানের চাষ প্রত্যন্ত অঞ্চলে ছড়িয়ে দেওয়া গেলে দেশের কৃষি অর্থনীতিতে ইতিবাচক ভূমিকা রাখবে বলে প্রত্যাশা করেন তিনি। এ ধানের ভাত ঔষধি গুনাগুন সমৃদ্ধ হওয়ায় এক কেজি ৪০০ টাকা কেজি। ব্ল্যাক রাইচে অধিক মাত্রায় থাকা খাদ্য গুনাগুন গুলোর মধ্যে রয়েছে অ্যামিনো অ্যাসিড, কপার, জিংক, ফাইবার সহ ঔষধি গুনাগুন ১১টি। কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করা, স্মরণ শক্তি বৃদ্ধি সহ বার্ধক্য, ক্যান্সার প্রতিরোধ, মোটা হওয়া বা স্থুলতা রোধ, রক্ত বৃদ্ধি, কিডনি-লিভার ও হার্ট সুস্থ রাখে।
জাকস ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক মো: নূরুল আমিন বলেন, অধিক খাদ্য গুনাগুন সমৃদ্ধ ‘ব্ল্যাক রাইচ’ চাষ ছড়িয়ে দিতে ব্যাপক কর্মসূচি গ্রহন করা হয়েছে। এবার ১০০ বিঘা জমিতে এই কালো ধান চাষ করার জন্য মাঠ পর্যায়ে জাকস ফাউন্ডেশনের কৃষি ইউনিট কাজ করছে বলে ও জানান তিনি।

Facebook Comments

শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো সংবাদ

বাংলাদেশে করোনা ভাইরাস

সর্বমোট

আক্রান্ত
১,৫৭৬,০১১
সুস্থ
১,৫৪০,৫৯৭
মৃত্যু
২৭,৯৮০
সূত্র: আইইডিসিআর

সর্বশেষ

আক্রান্ত
২২৭
সুস্থ
২৮০
মৃত্যু
স্পন্সর: একতা হোস্ট

পুরাতন সংবাদ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০  

নামাজের সময় সূচি

  • ফজর
  • যোহর
  • আছর
  • মাগরিব
  • এশা
  • সূর্যোদয়
  • ৫:০৯ পূর্বাহ্ণ
  • ১১:৫৩ পূর্বাহ্ণ
  • ৬:০০ পূর্বাহ্ণ
  • ৬:০০ পূর্বাহ্ণ
  • ৬:০০ পূর্বাহ্ণ
  • ৬:২৪ পূর্বাহ্ণ
সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত বগুড়া নিউজলাইভ ২০২০
Theme By bogranewslive
themesba-lates1749691102